এসপিসি কি এবং এর কাজ কি

এসপিসি কি এবং এর কাজ কি জেনে নিন ।

আসসালামুয়ালাইকুম, আশা করি সবায় ভাল আছেন ।

spc word express বা এসপিসি কি এবং এর কাজ কি জেনে নিন ।
আমাদের অনেকের মনে প্রশ্ন এসপিসি কি এবং এর কাজ কি । সেটাই আপনাদের মাঝে শেয়ার করবো ।

এসপিসি কি?

আমরা যারা অনলাইন ইনকামের সাথে পরিচিত তারা হয়তো বিগত দিনের বিভিন্ন “এম.এল.এম” কোম্পানির নাম শুনেছে, এবং যারা তাদের কোম্পানি তে কাজ করেছে  তারা কেউ সফল হয়েছে  এরকম জ্ঞহটনা ঘটেনি । তারা কেউ সফল হতে পারবেনা ,কারন সফল হতে গেলে ভাল কিছু করতে হবে। মানুষ কে ভুলভাল বুঝিয়ে হয়তো কিছু টাকা নিজের পকেট এ নেও্যা যায় কিন্তু সেটা সফলতা হয়না । ১৯৯৯ সাল থেকে শুরু করে ১২ বছর প্রায় ১ যুগে ৪৫ লক্ষ মানুষ কে পথে  বসিয়েছিলো ডেসটিনি । ডেসটিনির কথা শুনেন নি এমন মানুষ পাওয়া যাবেনা। ডেসটিনির হাত থেকে মানুষ কে বাঁচাতে সরকার ডেসটিনির কার্যক্রম বন্ধ করেছিলো ,সরকার বন্ধ করলে ও আসলে বন্ধ হয়নি ডেসটিনির মত হাজার ও কোম্পানি । কিছুদিন এই মাল্টিলেভেল_মারকেটিং বন্ধ ছিলো,কিন্তু বন্ধ হয়নি। ২০১৭ সাল থেকে এক চক্র তাদের ব্যাবসা পরিচালনা করে অনলাইনে। তারা জানতো বাংলাদেশে প্রচুর পরিমান বেকার যুবক রয়েছে তাদের কোন কস্ট ছাড়াই ইনকামের পথ দেখিয়েছে তারা,

সেই লোভে আমাদের দেশের যুবক রা তাদের ফাদে পা দেয় এবং ফলাফল আসে পথে নামা বা বাড়ি থেকে পালিয়ে যাওয়া।

এসপিসি হলো তাদের মত একটা কোম্পানি। এসব কোম্পানির টার্গেট হলো মানুষ কে পথে বসানো ।

 

“এম.এল.এম” সম্পর্কে

বাম থেকে ডান ডান থেকে বাম মানুষ ভর্তি করিয়ে রাতারাতি বড়লোক হওয়ার কথা বলে মানুষ কে এখন বোকা বানানো কিছুটা কঠিন। কিন্তু জালিয়াতির সব রাস্তা এখনো বন্ধ হয়নি । আগেই বললাম ডেসটিনি গেছে তো কি হয়েছে এরকম হাজার হাজার কোম্পানি আমাদের আশেপাশে আছে আমাদের বাশ দেওয়ার জন্যে ।ডেসটিনি আর এসপিসি শুধু মানুষের সাথে প্রতারনা করছে বা বিগত দিনে করছে শুধু তাই না । ২০১৮ তে বাংলাদেশে এসেছিলো BC  “BOARDCLOSING”নামক কোম্পানি। এই পোস্ট টি যারা পড়ছেন তারা হয়তো এই কোম্পানির সাথে পরিচিত ছিলেন। ডেসটিনির সেই চক্র বিভিন্ন ভাগে বিভক্ত হয়ে মানুষের কাছেলোভ দেখিয়ে তাদের পথে বসাচ্ছে কিন্তু তাদের ধরন টা অন্য রকম । একসময়ের E-LINKS কোম্পানির মালিক জাহাঙ্গির আলম তার সাথে ছিলো এম এল এম জগতের মাফিয়া জাকির হোসেন তাদের কাজ ই হলো বিভিন্ন কোম্পানি থেকে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়া । পরে তারা নতুন একটা কোম্পানি খুলে বসলো ENLOVING

জালিয়াতির কারনে তাদের আগের কোম্পানির গ্রাহকের মামলায় জাহাঙ্গির আলম এখম মালয়েশিয়া তে পলাতক আছে । তবুও তাদের ব্যাবসা বন্ধ নেই।

 

তার সহযোগি

জাহাঙ্গির আলম পালিয়ে গেছে তাতে কি? তার পার্টনার তার ব্যাবসা চালিয়ে যাচ্ছে । তার ঢাকার অফিসে তার হয়ে কাজ করছে ডেসটিনির পি এস ডি ডাইমন্ড রা । এতকিছু জানার পরে ও তাদের ফাদে পা দিচ্ছে কিছু টা লোভি এবং সাধারন মানুষ । বোকার রাজ্যে পা রাখা এরকম গ্রাহক রা একসময় সবকিছু হারিয়ে পথে বসে । ডেসটেনিতে সবায় লস করলে ও কিছু মানুষ তাদের পকেট লুট করে নিয়েছে ঠিকই। এরকম লোকজনদের ভিতরে একজন হলেন নুরে আলম । সে ছিলো E-LINKS কোম্পানির সাবেক ডিস্ট্রিবিউটর। তার এক সাক্ষাতকারে জানা যায় সে নাকি এখান থেকে ১কোটি এর বেশি টাকা ইনকাম করেছে এবং তার বাড়ি গাড়ি সব ই হয়েছে ,তার দাবি তার মেধার দাম এম এল এম কোম্পানি ছাড়া কেউ দিতে পারবেনা । বাংলাদেশের আনাচে-কানাচে এই কোম্পানিগুলো ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়েছিলো । বিশেষ করে ফেনিতে খুব বেশি মানুষ এই ফাদে পা দিয়েছিলো । ফেনিতে ডেসটিনির বিপ্লব ঘটিয়েছেন যিনি তার নাম হলো পিয়ার আহামেদ ।

সে বিভিন্ন ভাবে মানুষের সাথে প্রতারনা করে আসছে কিন্তু তার দাবি সে মানুষের জন্যে ভাল কিছুই করছে ।
এসপিসি কি এবং এর কাজ কি সেটা এতক্ষনে আপনারা বুঝে গেছেন ।

বোর্ডক্লোজিং

বোর্ডক্লোজিং নামক মেই কোম্পানি এসেছিলো ২০১৮ সালে । তাদের কোন প্রডাক্ট ছিলোনা তারা সুধু টাকা লেনদেন চালাতে লাগলো ।

এভাবে ১ বছর পার হয়ে গেলো । যখন ১ বছর পার হলো তখন তাদের গ্রাহক ছিলো ২ লক্ষ এর অধিক । এই কোম্পানি তে যে টাকা লেনদেন হতো সেটা সবায় জানতো তার পরে ও সবায় এখানে ইনভেস্ট করতো কিছু লাভের আশায় । আর সবচেয়ে বড় ফাদ পেতেছিলো তারা মাওলানা দের কে তাদের কোম্পানির বড় বড় পোস্ট এ জায়গা করে দিয়েছিলো যাতে মানুষের বিশ্বাস বেশি হয় । এখানে যারা ছোট-খটো লিডার ছিলো তারা এখন নতুন কোম্পানি খুলে নিজেদের ব্যাবসা পরিচালনা করছে । তাদের মধ্যে একজন হলেন ফেনির জাকির হোসেন তিনি তিনি ছিলেন একজন সোয়েটার ফ্যাক্টরির অপারেটর , আর সে আজকে উত্তরা তে একটা ফ্লাট নিয়ে তার ব্যাবসা চালিয়ে যাচ্ছে । জাকির হোসেন এর প্রধান টার্গেট গার্মেন্টস কর্মী রা , কারন সে জানতো তাদের ইনকাম কম । সে বিভিন্ন ভাবে তাদের কাছে যেয়ে তার নিজের কোম্পানি তে কাজ করার জন্যে ইনভাইট দেয় ।

 

গাজিপুরে এম এল এম

spc word express বা এসপিসি কি এবং এর কাজ কি জেনে নিনঃ বাংলাদেশের সব জেলার মত গাজিপুরে ও দেখা যাচ্ছে এসব কোম্পানির আনাগোনা । গাজিপুরে এম এল এম বেড়েই যাচ্ছে।

গাজিপুর যেহুতু পোশাক-শিল্প কারখানা বেশি সুত্রাং প্রতারক দের এখানে একটা সুবিধা হচ্ছে ।

শল্প বেতনের মানুষ কে বেশি টাকা ইনকাম এর লোভ দেখিয়ে তারা তাদের কোম্পানি তে জয়েন করাচ্ছে। গাজিপুরে বিভিন্ন গারমেন্টস-সোয়েটার কোম্পানি তে  এম এল এম ব্যাবস্যা দিন দিন চাঙ্গা হয়ে উঠছে। গাজিপুরের বিভিন্ন ফ্যাক্টরির বড় বড় কর্মকর্তা রা  এই ইনকামের ফাদে পা দিচ্ছে। এর আগে ও লিজুম,বোর্ডক্লোজিং,এডভিউ ইউকে,ড্রিমপ্রোজেক্ট সহ বিভিন্ন কোম্পানি মানুষ কে ধোকা দিয়ে আসছে । এসপিসি কি এবং এর কাজ কি জেনে নিন ঃ এখন গাজিপুরে সবার মুখে মুখে এসপিসি এর কথা শোনা যায় । পরিশেষে একটাই কথা বলবো এরকম কোম্পানি তে কাজ করার আগে ভাবার ও দরকার নেই যে করবেন কি না । কেউ যদি ইনভাইট দেয় সরাসরি না বলে দিবেন। অনলাইনে ইনকাম এর বিভিন্ন উপায় আছে সেগুলো আপনারা শিখলে ভাল কিছু করতে পারবন। এসপিসি কি এবং এর কাজ কি সেটা যদি আপনারা বুঝতে পারেন তাহলে পোস্ট এ একটা লাইক দিয়ে আপনার ফেসবুক টাইমলাইনে পোস্ট করে দিন ।
আসসালামুয়ালাইকুম।

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা ইউ এস এ অনলাইন সার্ভে  কাজ করে থাকেন ।

তাদের জানা দরকার যে এই কাজটি হারাম নাকি হালাল আপনি চাইলে ব্লগটি পড়তে পারেন

জেনে নিন সার্ভে কাজ হারাম নাকি হালাল